আঙ্গুলের শেপ অনুযায়ী চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের ব্যাখ্যা চাই?

আঙ্গুলের শেপ অনুযায়ী চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের ব্যাখ্যা চাই?

Default Asked on নভেম্বর 8, 2017 in সাধারন প্রশ্ন.
Add Comment
1 Answer(s)

প্রতিটি মানুষেরই চেহারায় যেমন ভিন্নতা রয়েছে তেমনি হাত পায়ের নখ বা আঙ্গুলেরও ভিন্নতা রয়েছে। অনেক গবেষকই মনে করেন যে হাত পায়ের ভিন্নতার দরুণ একেক মানুষের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য একেক রকম হয়। এমনকি হাত পায়ের গাঠনিক বৈশিষ্ট্যের উপর ভিত্তি করে বলেও দেয়া সম্ভব যে একজনের পূর্বপুরুষ কোন বংশোদ্ভূত বা কোন এলাকার অধিবাসী ছিলেন।

আপনি যে ছবিটি দিয়েছেন তাতে মূলত ৩ ধরনের মানুষের প্যাটার্ন উল্লেখিত আছে যাদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য ভিন্ন ভিন্ন। ছবিটিতে ৩ ধরনের আঙ্গুলের গাঠনিক বৈশিষ্ট্য লক্ষ্য করা যাচ্ছে যেগুলোকে A, B এবং C নামে অভিহিত করা হয়েছে। এগুলোর ব্যাখ্যা জেনে নিন।

A) A প্যাটার্নে দেখা যাচ্ছে হাতের আঙ্গুলের মধ্যে মধ্যমা সবথেকে লম্বা, এরপরে অনামিকা এবং তারপরে তর্জনী। এই প্যাটার্নের হাতের অধিকারীরা দেখতে বেশ সুন্দর হয়ে থাকেন। হাসিখুশি থাকতে পছন্দ করে। এরা সবকিছুর মাঝেই এক ধরনের আনন্দ খুঁজে পান। স্থিরবুদ্ধিসম্পন্ন এই ব্যক্তিরা মাঝে মাঝে আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠেন। যেকোনো বিপদে এরা ঝুঁকি নিতে পারেন। পেশাগত দিক থেকে এরা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সৈনিক, প্রকৌশলী, দাবা খেলোয়াড় ইত্যাদি হয়ে থাকেন। তাছাড়া যেকোনো সমস্যায় তারা দ্রুত সমাধান টেনে দিতে পারেন। গবেষকরা বলেন যে যাদের মধ্যমা আঙ্গুলটি অধিক লম্বা হয়ে থাকে তারা অন্যান্য সবার তুলনায় বেশি আয় করে থাকেন।

B) B প্যাটার্নের আঙ্গুলগুলোর মাঝে দেখা যাচ্ছে যে মধ্যমা সবচেয়ে লম্বা, এরপরে তর্জনী এবং সবশেষে অনামিকা লম্বা। হাতের আঙ্গুলের এই ধরনের বৈশিষ্ট্যের ব্যক্তিরা অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী হয়ে থাকেন এবং কিছুটা আত্ম-অহংকারীও হয়ে থাকেন। তারা অবসর সময়ে একা থাকতেই বেশি পছন্দ করেন। সম্পর্কের ক্ষেত্রে তারা কখনই ভীত থাকেন না বরং তাদের জীবনে প্রেম আসলে তারা এটিকে সানন্দে গ্রহণ করেন এবং বিষয়টিকে উপভোগ করেন।

C) C প্যাটার্নের আঙ্গুলগুলোতে দেখা যাচ্ছে যে মধ্যমা সব থেকে বড় এবং এরপরে তর্জনী ও অনামিকা একই অবস্থানে অবস্থিত অর্থাৎ সমান্তরাল ভূমিতে অবস্থিত। এই বৈশিষ্ট্যের ব্যক্তিরা অনেক শান্তিপ্রিয় হয়ে থাকেন। তারা যেকোনো দ্বান্দ্বিক অবস্থানে নিজেদের অনিরাপদ মনে করেন। সংগঠক হিসেবে এই বৈশিষ্ট্যের ব্যক্তিরা বেশ ভালো এবং এরা সবার সাথে মিলেমিশে কাজ করতেই বেশি পছন্দ করেন। ভালোবাসার সম্পর্কগুলোতে তারা সবসময় বিশ্বস্ত থাকার চেষ্টা করেন, সবসময়ই প্রিয়মানুষটির প্রতি অনেক বেশি আবেগপ্রবণ হয়ে ওঠেন এবং যত্নশীল হয়ে থাকেন।

সূত্র : healthylifetricks.com

মহাগুরু Answered on নভেম্বর 8, 2017.
Add Comment

Your Answer

By posting your answer, you agree to the privacy policy and terms of service.